Home / এক্সক্লুসিভ / আ’লীগ নেতার সহযোগিতায় রাস্তা বন্ধ করে কবরস্থান বানালো প্রবাসীর স্ত্রী

আ’লীগ নেতার সহযোগিতায় রাস্তা বন্ধ করে কবরস্থান বানালো প্রবাসীর স্ত্রী

রায়পুর প্রতিনিধি: লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে বাড়ির রাস্তা বন্ধ করে আ’লীগ নেতার সহযোগিতায় এক প্রবাসীর স্ত্রী তৈরি করেছে কবরস্থান। তাতেই চলাচলের প্রতিবন্ধকতা তৈরি হয় চরআবাবিল ইউপির ক্যাম্পের হাট সড়কের গাইয়ারচর গ্রামের এক কৃষক পরিবারের। গত তিন বছর সুপারি বাগানের ভিতরে পানি দিয়ে চলাচল করছে নিরীহ পরিবারটি। আবার রাতের আঁধারে দুর্বৃত্তরা কবরস্থানের দেয়ালও ভেঙ্গে দিয়ে উল্টো থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। অভিযোগের ভিত্তিতে শালিশ বৈঠকে ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকের দেড় লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।

ক্ষতিগ্রস্ত কৃষক বাবুল সৈয়াল জানায়, বড় ভাই হান্নানের কাছ থেকে তিন বছর আগে দুই শতাংশ জমি কিনে সরু রাস্তা দিয়ে চলাচল করছিলাম। কিন্তু একই এলাকার প্রবাসীর স্ত্রী, ছকিনার স্বামী আমার মা ও আরেক ভাইয়ের কাছ থেকে জমি কিনে চলাচলের রাস্তাটি বন্ধ করে তার চারপাশে ইটের দেয়াল দিয়ে কবরস্থান বানায়। এতে আমার পরিবার অবরুদ্ধ হয়ে পড়ে।

এতদিন বিচার না পেয়ে শনিবার ফাঁড়ি থানায় অভিযোগ দায়ের করি। কিন্তু বৈঠকে ছকিনা বেগম উপস্থিত হয়নি। তাই রাস্তার জন্য কবরস্থানের ওই অংশের দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হয়েছে। এখন নতুন এসআই থানায় যোগদান করে প্রতিপক্ষের কথায় আমার দেড় লাখ টাকা জরিমানা করে। যথাসময়ে না দিতে পারলে জেলে ঢুকিয়ে দেয়ারও হুমকি দেয়া হয়। এতো টাকা আমি কোথায় পাবো? তাছাড়া ছকিনার বাড়ি বিরোধকৃত জায়গা থেকে ৪০০ মিটার দূরে অবস্থিত। প্রায় সময় তুচ্ছ ঘটনায় ইউনিয়ন আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক তাজল ইসলামকে নিয়ে ঝামেলায় লিপ্ত হয়।

স্থানীয়রা জানায়, কৃষক বাবুলের এই ঘটনা স্থানীয় প্রশাসন, থানা-পুলিশ সবাই জানলেও কোনো সুরাহা হচ্ছে না। গত তিন বছর অবরুদ্ধ করে রেখেছে প্রভাবশালী ছকিনা বেগমসহ ওই আ’লীগ নেতা ও তার ক্যাডারবাহিনী। তবে ছকিনা বেগম ও আ’লীগ নেতা অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, কৃষক বাবুল সৈয়ালের বাড়ির রাস্তা বন্ধ করে কবরস্থান নির্মাণ করা হয়। পূর্ব পাশে সুপারি গাছের ভিতরে পানি দিয়ে একটি প্রবেশপথ দিয়ে সড়কে উঠতে হয়। মিমাংশার জন্য বাবুল প্রশাসনের কাছে আবেদন করার পরও তা হয়নি। এই পথ ব্যবহার করতে গেলে সকিনা বেগম ওই আ’লীগ নেতাসহ লোকজন তাদের বাঁধা দেন, গালিগালাজ করেন। এ জন্য তারা সুপারি বাগানের ভিতর পানি দিয়ে খুব কষ্টে চলাচল করছেন।

ছকিনা বেগম দাবি করেন, বাবুল সৈয়ালের মা ও তার এক ভাই’র কাছ থেকে জমি কিনে কবরস্থান করেছি। কিন্তু বাবুল সৈয়াল তার পরিবার নিয়ে আমার কবরস্থান ভেঙ্গে দিয়েছে। আমি থানায় বিচার চাইলে শালিশদাররা তার জন্য রাস্তা ছেড়ে দেয়া, রেজিষ্ট্রি করে দিবে ও ভাঙচুরের জন্য মোট দেড় লাখ টাকা জরিমানা করেছেন। বাবুল সৈয়ালও সবার সিদ্ধান্ত মেনে নিয়ে এখন উল্টাপাল্টা কথা বলছেন।

ইউপি সদস্য জাফর হোসেন বলেন, প্রায় তিন বছর আগে একই এলাকার কৃষক বাবুল সৈয়াল ও প্রবাসীর স্ত্রী ছকিনা বেগমের সাথে জমি ও রাস্তা নিয়ে বিরোধ চলছে। ছকিনা বাবুলের মা ও ভাই’র কাছ থেকে জমি কিনে রাস্তা বন্ধ করে কবরস্থান করলে ঝামেলা আরো বাড়ে। এঘটনায় ফাঁড়ি থানায় অভিযোগ দিলে উভয় পক্ষের লোকদের নিয়ে বৈঠক হয়। সকলের সিদ্ধান্তে বাবুলকে জমি রেজিষ্ট্রার ও রাস্তা ছেড়ে দেয়ার জন্য এক লাখ দিবে এবং সকিনার কবরস্থান ভাঙচুরের দায়ে বাবুলের ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। বাবুলও এ সিদ্ধান্ত মেনেছে।

রায়পুর হায়দরগন্জ ফাঁড়ি পুলিশের পরিদর্শক মোঃ জাহাঙ্গির বলেন, জমি নিয়ে বিরোধে ছকিনা বেগম নামে এক নারী ৪ জনকে অভিযুক্ত করে রায়পুর থানায লিখিত অভিযোগ দিয়েছে। ওসি সাহেবের সিদ্ধান্তে উভয় পক্ষের উপস্থিতে মিমাংশা করা হয়েছে। বাবুল সৈয়াল তা মেনেও নিয়েছেন। তারপরএ কোন সমস্যা থাকলে আলোচনা করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এনকে

About দেশ খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Powered by Dragonballsuper Youtube Download animeshow