সংবাদ শিরোনামঃ
লক্ষ্মীপুরে এক গৃহবধুকে ধর্ষণের চেষ্টা এক যুবক গ্রেফতার  ***  মাধ্যমিকে বার্ষিক পরীক্ষার পরিবর্তে অ্যাসাইনমেন্ট  ***  বিশ্বব্যাপী করোনা থেকে সুস্থ ৩ কোটি ৬ লাখ  ***  ড. কামাল অবসর নিন, মান্নান শান্তিগঞ্জের মন্ত্রী নন  ***  লক্ষ্মীপুরে বিদ্যুৎ-সংযোগের নামে ৪ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ দালাল শাহআলম মাষ্টারে বিরুদ্ধে !!  ***  রায়পুরে সাংবাদিকের উপর হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন  ***  রায়পুরে উপ-নির্বাচন; প্রশাসনের উপস্থিতিতে সাংবাদিককে পিটিয়ে জখম  ***  বিশ্বব্যাপী করোনা থেকে সুস্থ ৩ কোটি ১১ লাখ  ***  দৌলতদিয়ায় ৫ শতাধিক ট্রাক নদী পারের অপেক্ষায়  ***  নতুন আইনে গণধর্ষণের দায়ে ৫ জনের ফাঁসির আদেশ
Home / স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা / খাওয়ার জন্য কতটুকু নিরাপদ গরুর মাংস

খাওয়ার জন্য কতটুকু নিরাপদ গরুর মাংস

দেশ খবর ডেস্কঃ গরুর মাংসে প্রচুর কোলেস্টেরল থাকায় বেশিরভাগ মানুষই মনে করেন মাংস খেলেই স্বাস্থ্যের অনেক ক্ষতি হয়ে যাবে। কিন্তু পুষ্টিবিদরা জানিয়েছেন, গরুর মাংসের ক্ষতিকর দিক যেমন আছে, তেমনি এই মাংস অনেক উপকারও করে থাকে এবং গরুর মাংসে যতো পুষ্টিগুণ আছে সেগুলো অন্য কোনো খাবার থেকে পাওয়া কঠিন।

এখন এই মাংস আপনার জন্য ক্ষতিকর হবে না উপকারী, সেটা নির্ভর করবে আপনি সেটা কতোটা নিয়ম মেনে, কী পরিমাণে খাচ্ছেন। এ বিষয়ে বিস্তারিত একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে বিবিসি। চলুন তাহলে এ সম্পর্কে জেনে নিই।

গরুর মাংসের পুষ্টিগুণ
পুষ্টিবিদরা জানিয়েছেন, গরুর মাংসে রয়েছে আমাদের শরীরের জন্য প্রয়োজনীয় প্রোটিন, ভিটামিনস, মিনারেলস বা খনিজ উপাদান যেমন, জিঙ্ক, সেলেনিয়াম, ফসফরাস, আয়রন। আবার ভিটামিনের মধ্যে রয়েছে ভিটামিন বি২ বি৩, বি৬, এবং বি১২। আর এই পুষ্টিকর উপাদানগুলো-

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়।

পেশি, দাঁত ও হাড়ের গঠনে ভূমিকা রাখে।

ত্বক/চুল ও নখের স্বাস্থ্য ভালো রাখে।

শরীরের বৃদ্ধি ও বুদ্ধি বাড়াতে ভূমিকা রাখে।

ক্ষত নিরাময়ে সাহায্য করে।

দৃষ্টিশক্তি ভালো রাখে।

অতিরিক্ত আলসেমি/ ক্লান্তি বা শরীরের অসাড়তা দূর করে কর্মোদ্যম রাখে।

ডায়রিয়া প্রতিরোধে সাহায্য করে।

রক্তস্বল্পতা প্রতিরোধ করে।

খাবার থেকে দেহে শক্তি যোগান দেয়।

স্মৃতিশক্তি বাড়ায়।

অবসাদ/ মানসিক বিভ্রান্তি/ হতাশা দূর করে।

কার জন্য কতোটুকু প্রোটিন

গরুর মাংস, হাড়, কলিজা, মগজ ইত্যাদি থেকে প্রোটিন পাওয়া যায়। সবচেয়ে বেশি প্রোটিন থাকে মগজে, এরপর কলিজায়, তারপর মাংসে।

প্রতিদিনের প্রোটিনের চাহিদা নির্ভর করে আপনার ওজনের ওপর। ধরলাম একজন মানুষের আদর্শ ওজন ৫০ কেজি। তিনি যদি সুস্থ থাকেন তাহলে প্রতিদিন তার ৫০ গ্রামের মতো প্রোটিন প্রয়োজন, তবে যদি তার কিডনি জটিলতা থাকে তাহলে তিনি প্রতিদিন ২৫ গ্রাম প্রোটিন খাবেন। মানে স্বাভাবিকের চেয়ে অর্ধেক।

আবার মেয়েদের মাসিক চলাকালীন কিংবা গর্ভবতী অবস্থায় এই পরিমাণ দ্বিগুণ হয়ে যাবে।অর্থাৎ আদর্শ ওজন ৫০ কেজি হলে তারা ১০০ গ্রাম পর্যন্ত প্রোটিন খেতে পারবেন। যাদের ওজন আদর্শ ওজনের চাইতে কম তাদেরও বেশি বেশি প্রোটিন খাওয়া প্রয়োজন।

তবে কারোই প্রতিদিন ৭০ গ্রামের বেশি এবং সপ্তাহে ৫০০ গ্রামের বেশি প্রোটিন খাওয়া উচিত না বলে ব্রিটেনের স্বাস্থ্য সেবা বিভাগ জানিয়েছে।

প্রতি ১০০ গ্রাম গরুর মাংসে ২৬ গ্রাম প্রোটিন এবং ২ গ্রাম ফ্যাট থাকে। তার মানে প্রতিদিনের এই প্রোটিনের চাহিদা পূরণে কি আপনি ২৭০ গ্রাম মাংস খাবেন? একদমই না। কেননা দৈনিক প্রোটিনের চাহিদা একটি খাবার নয় বরং বিভিন্ন খাবার ও পানীয় দিয়ে আমরা পূরণ করে থাকি।

About desh khobor

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Powered by Dragonballsuper Youtube Download animeshow