ঢাকা, শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৪ মাঘ ১৪২৯, ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

ডিসির নাম ভাঙিয়ে প্রতারণা, আটক ১



ডিসির নাম ভাঙিয়ে প্রতারণা, আটক ১

বাগেরহাট জেলা প্রশাসক (ডিসি) ও সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) নাম ভাঙিয়ে প্রতারণার অভিযোগ একজনকে আটক করেছে পুলিশ। রবিবার (১৮ সেপ্টেম্বর) গভীর রাতে ফিরোজ আলী খন্দকারকে (৪৫) আটক করে বাগেরহাট মডেল থানা পুলিশ। পৌরসভার সোনাতলা চালিতাতলা এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়। সরকারি ভাবে বিদেশে পাঠানোর কথা বলে তিনি প্রতারণা করেছেন বলে অভিযোগ রয়েছে।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, আটক মোঃ ফিরোজ আলী খন্দকার গোপালগঞ্জ জেলার কোটালিপাড়া উপজেলার নোয়াদা এলাকার মৃত মোকসেদ আলী খন্দকারের ছেলে। তিনি দীর্ঘদিন ধরে বাগেরহাট পৌরসভার সোনাতলার চালিতাতলা এলাকায় একটি ভাড়া বাড়িতে বসবাস করছে। নিজেকে বাগেরহাট সদর উপজেলা ইমারত নির্মাণ শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক দাবি করছেন তিনি।

সদর উপজেলার মুক্ষাইট এলাকার চা দোকানি আলামিন হোসেন জনি নামের এক ভুক্তভোগীর বরাতে বাগেরহাট সদর মডেল থানা পুলিশ বলেন, কিছুদিন পূর্বে ফিরোজ খন্দকারের সাথে জনির পরিচয় হয় এবং তাকে সরকারি ভাবে বিদেশ যাওয়ার প্রস্তাব দেয়। এতে রাজি হলে অনলাইন আবেদন, মেডিকেল টেস্ট ও পুলিশ ক্লিয়ারেন্স বাবদ ১২ হাজার টাকা নেয়। পরে ফিরোজের দেওয়া একটি একাউন্টে ৫০ হাজার টাকা জমা দিতে বললে জনির সন্দেহ হয়।  বিষয়টি জনি সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে জানালে তিনি জনিকে থানায় অভিযোগ দিতে বলেন। 

এ বিষয়ে বাগেরহাটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মাহামুদ হাসান বলেন, আটক ব্যক্তি বাগেরহাট সদর উপজেলার বিভিন্ন এলাকার ২০ থেকে ২৫ জনকে জেলা প্রশাসক ও সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার মাধ্যমে কানাডা, রোমানিয়া, মালয়শিয়াসহ ইউরোপের বিভিন্ন দেশে নেওয়ার কথা বলে ডাক্তারি পরীক্ষা করিয়েছে। এ বাবদ ভুক্তভোগীদের কাছ থেকে মোটা অংকের টাকাও হাতিয়ে নিয়েছে। 

তিনি বিশ্বাসযোগ্যতা অর্জনের জন্য বাগেরহাট থেকে ২২০ জন সরকারি ব্যবস্থাপনায় বিদেশ যেতে পারবে বলে প্রচার চালাতে থাকেন। এ জন্য তিনি বিভিন্ন ব্যক্তিকে ৫০ হাজার টাকা জামানত হিসেবে ব্যাংক চেক জমা দিতে বলেন। পরবর্তীতে প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংক থেকে সাড়ে ৬ লাখ টাকা ঋণ পাইয়ে দেওয়ারও আশ্বাস দেন। এ ঘটনায় বাগেরহাট সদর মডেল থানায় একটি নিয়মিত মামলা রেকর্ডের পর ফিরোজ আলী খন্দকার কে সোমবার দুপুরে আদালতে প্রেরন করা হয়েছে।

মাসুম হাওলাদার/দেশখবর


   আরও সংবাদ