ঢাকা, শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২১ জৈষ্ঠ্য ১৪২৯, ১২ রজব ১৪৪৪

দাফনের দেড়মাস পর কিশোরীর মরদেহ উত্তোলন



দাফনের দেড়মাস পর কিশোরীর মরদেহ উত্তোলন

দাফনের এক মাস ২৫ দিন পর রাবেয়া বেগম (১৮) নামে কিশোরীর মরদেহ পুনঃরায় উত্তোলন করেছে পুলিশ। রাবেয়াকে হত্যা করা হয়েছে মর্মে তার পরিবারের পক্ষ থেকে আদালতে মামলা দায়েরের পর নোয়াখালীর সুবর্ণচর উপজেলার চরক্লার্ক ইউনিয়নের পশ্চিম উরিরচর গ্রাম থেকে ওই কিশোরীর মরদেহটি উত্তোলন করে পুলিশ।

মঙ্গলবার (২৪ জানুয়ারি) দুপুরে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট অশোক বিক্রম চাকমা ও চরজব্বার থানা পুলিশের উপস্থিতিতে মৃতদেহটি উত্তোলন করা হয়। গত ২৩ ডিসেম্বর নিহতের ভাই হাদিছ বাদী হয়ে প্রধান অভিযুক্ত আবদুল মন্নানসহ ৩ জনকে আসামি করে আদালতে মামলাটি দায়ের করেন।

অভিযোগ বলা হয়, বাড়িতে একা থাকার সুবাদে প্রতিবেশী আবদুল মন্নান বিভিন্নভাবে রাবেয়াকে উত্যক্ত করতো। এরই মধ্যে সে রাবেয়ার সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলে। পরবর্তীতে বিভিন্ন সময় পরিবারের লোকজনের অজান্তে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে রাবেয়ার সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক গড়ে তুলে। শারীরিক সম্পর্কের পর আবদুল মন্নানকে বিয়ের জন্য চাপ দিলে সে তালবাহানা শুরু করে। রাবেয়াকে বিয়ে করার বিষয়ে অনিহা প্রকাশ করে এবং তাকে হত্যার হুমকি দেয়।

অব্যাহত হুমকি এবং তাদের দ্বারা প্রভাবিত হয়ে রাবেয়া আত্মহত্যা করেছে মর্মে অভিযোগ আনেন। সুষ্ঠু বিচার পাওয়ার আশায় নিহতের ভাই বাদী হয়ে নোয়াখালী সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টে একটি মামলা দায়ের করেন।

চরজব্বার থানার পুলিশ-পরিদর্শক (তদন্ত) জয়নাল আবেদিন বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, আদালতের নির্দেশে নিহতের মৃতদেহ উত্তোলন করে ময়নাতদন্তের জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।


   আরও সংবাদ