ঢাকা, শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২১ জৈষ্ঠ্য ১৪২৯, ১২ রজব ১৪৪৪

তিন দশক ধরে ইঁদুর ধরাই যার পেশা!



তিন দশক ধরে ইঁদুর ধরাই যার পেশা!

জয়পুরহাটের আক্কেলপুর উপজেলার ভট্টপলাশী গ্রামের আনোয়ার হোসেন। ছোট বেলায় ইঁদুরের গর্ত থেকে ধান বের করার কৌশল রপ্ত করেন। সেই কাজ থেকে বয়স বাড়ার সাথে দক্ষ হয়ে ওঠেন ইঁদুর নিধনে। নেশা থেকে হয়ে ওঠে পেশা। প্রায় তিন দশক ধরে ইঁদুর ধরা পেশায় আনোয়ার হোসেন। পেয়েছেন জাতীয় পুরস্কার।

আনোয়ার হোসেন বলেন, ২৫ বছর আগে শখের বশে ইঁদুর ধরা শুাং করেছিলেন। তারপর থেকে পেশা। এখন প্রশিক্ষণ দিচ্ছেন অন্যদের। ঘরের আসবাবপত্র আর ক্ষেতের ফসল- সব কিছুতেই ভাগ বসিয়ে তা নষ্ট করে ইঁদুর। বাড়ির কিংবা ক্ষেতের ইঁদুর মেরে বিনিময়ে পান চাল অথবা টাকা। তা দিয়েই দুই সন্তান ও স্ত্রীকে নিয়ে চলে তার সংসার।

ভট্টপলাশী গ্রামের বাসিন্দা আনোয়ার হোসেনের বয়স ৫৫ বছর। ১৯৯৫ সাল থেকে ইঁদুর ধরে আসছেন তিনি। জাতীয় ইঁদুর নিধন অভিযানে অংশ নিয়ে ১৪ ইঞ্চি রঙিন টেলিভিশনসহ বেশ কিছু পুরস্কারও পেয়েছেন। তবে বর্তমানে এই পেশাতে তিনি একাই নন। গত ২৬ বছরে তার কাছে ইঁদুর ধরার কৌশল শিখেছেন ৫৭ জন। তারা এটাকে পেশা হিসেবে নিয়েছেন। এখনও অনেক আসেন তার শিষ্যত্ব নিতে।

আনোয়ার হোসেন জানান, ছোটবেলায় ইঁদুরের গর্ত খুঁড়ে ধান বের করে সেই ধান দিয়ে মুড়ির মোয়া খেয়েছি। ধীরে ধীরে এই কাজে দক্ষতা বাড়তে থাকলে এক কৃষি অফিসার আমাকে বললেন, ইঁদুর মেরে লেজগুলো জমা দিও, পুরস্কার পাবে। তখন থেকে আমি আরও অনেক কৌশল অবলম্বন করি। সবমিলিয়ে এখন পর্যন্ত দুই-চার লাখ ইঁদুর মেরেছি।

আক্কেলপুরের কৃষক আনোয়ার হোসেন বলেন, আলুর জমিতে ২ থেকে ৩ মণ আলু নষ্ট করে ইঁদুর। তাহলে সারাদেশে কত টাকার ক্ষতি করে। ইঁদুর মারা গেলে এই ক্ষতির হাত থেকে কৃষকরা বাঁচবে।

কৃষি বিভাগের তথ্যমতে, প্রতিবছর দেশে উৎপাদিত ফসলের ১০ থেকে ১৫ ভাগই চলে যায় ইঁদুরের পেটে। প্রায় ২ হাজার কোটি টাকার ফসল, আসবাবপত্র ও অন্যান্য জিনিসপত্র নস্ট করে ইঁদুর। নানা উপায়েও যখন ক্ষতি থামানো যাচ্ছে না, তখন ইঁদুর নিধনের দারুন কৌশল রপ্ত করেছেন। নেশা থেকে একসময় ইঁদুর ধরাই তার পেশা হয়ে দাঁড়ায়।

এলাকাবাসীরা জানায়, এখন দূর-দুরান্ত থেকে ডাক আসে ইঁদুর ধরার জন্য। যে কোন ধরনের ফসলের ক্ষেত, বাড়ি কিংবা গাছের ইঁদুর ধরতে পারেন আনোয়ার। নিজের বুদ্ধিতে উদ্ভাবন করেছেন বিভিন্ন ধরনের ফাঁদ। এখন গ্রামের উৎসাহীদের প্রশিক্ষণ দিচ্ছেন। ইঁদুর নিধনের মাধ্যমে ফসল রক্ষায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকার স্বীকৃতিস্বরূপ জাতীয় পুরস্কার পেয়েছেন আনোয়ার।


   আরও সংবাদ