ঢাকা, সোমবার, ০৮ অগাস্ট ২০২২, ২৪ অগ্রহায়ন ১৪২৯, ১০ মহররম ১৪৪৪

হারেই শুরু সোহানের অধিনায়কত্ব



হারেই শুরু সোহানের অধিনায়কত্ব

এক ঝাঁক তরুণ ক্রিকেটার। টি-টোয়েন্টির ‌‘নতুন যুগে’ নেতৃত্বে নুরুল হাসান সোহান। সোহানের নেতৃত্বের শুরুটা হলো হার দিয়ে। প্রথম টি-টোয়েন্টিতে জিম্বাবুয়ের কাছে ১৭ রানে হেরেছে বাংলাদেশ। হারারেতে তিন ম্যাচের সিরিজে স্বাগতিকরা এগিয়ে রয়েছে ১-০ ব্যবধানে।

প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ৩ উইকেটে জিম্বাবুয়ে তুলেছিল ২০৫ রান। জবাবে ৬ উইকেটে ১৮৮ রানে থেমে যায় তারুন্য নির্ভর টাইগারদের ইনিংস। শেষ ৫ ওভারে জিম্বাবুয়ে নিয়েছিল ৭৭ রান। বাংলাদেশের দরকার ছিল ৬৬। অধিনায়ক সোহানের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে ২০৬ রানের বিশাল লক্ষ্য তাড়া করেও জয়ের সম্ভাবনা তৈরি হয়েছিল টাইগারদের। কিন্তু শেষ রক্ষা আর হয়নি। সোহান অধিনায়কের মতো দায়িত্ব নিয়ে খেললেও বড় লক্ষ্য আর পাড়ি দিতে পারেনি সফরকারীরা। ২৬ বলে ১ চার আর ৪ ছক্কায় সোহান অপরাজিত থাকেন ৪২ রানে।

বাংলাদেশের হয়ে প্রথমে ব্যাট করতে নামেন লিটন দাস আর মুনিম শাহরিয়ার। প্রথম ওভারে তারা নেন ৫ রান। দ্বিতীয় ওভারেই সাজঘরের পথ ধরেন মুনিম। ওয়েলিংটন মাসাকাদজার ঘূর্ণিতে শর্ট থার্ডম্যানে সহজ ক্যাচ দেন ৮ বলে ৪ করে। এরপরই পাওয়ার প্লেতে লিটন দারুণ ব্যাটিংয়ে দলকে এনে দেন ৬০ রান।

ইনিংসের সপ্তম ওভারে শন উইলিয়ামসের বলে শর্ট ফাইন লেগে ক্যাচ তুলে দেন লিটন। এনগারাভা বলটা তালুবন্দী করলেও দ্রুত হাত থেকে ফেলে দেন। ফলে ক্যাচ আউট থেকে বেঁচে যান লিটন। কিন্তু লিটন ভেবেছিলেন তিনি আউট হয়ে গেছেন। তাই ক্রিজ ছেড়ে বেরিয়ে পড়েন। ওই সুযোগে রানআউট করে দেন উইলিয়ামস। ১৯ বলে ৬ বাউন্ডারিতে গড়া লিটনের ৩২ রানের ঝড়ো ইনিংসটি থামে বোকার মতো আউটে।

এনামুল হক বিজয় শুরুটা করেছিলেন ধীরে। ২৫ বলে ২০ রান করে উইকেটে সেটও হন। এরপর হাত খোলার চেষ্টা করেন। ইনিংসের দশম ওভারে সিকান্দার রাজাকে মিডউইকেটের ওপর দিয়ে দারুণ এক ছক্কা হাঁকান। পরের বলেও একই জায়গা দিয়ে ছক্কা মারতে গিয়েছিলেন বিজয়। সেটাই বিপদ ডেকে আনে। বল টাইমিং করতে না পেরে এবার ডিপমিডউইকেটে ক্যাচ হয়ে যান সাম্বার। ২৭ বলে ২ ছক্কায় ২৬ রানে সাজঘরে ফেরেন বিজয়।

দুই ওভার পর আফিফ হোসেনও আউট হন নিজের ভুলে। লুক জঙউইয়ের পাতা ফাঁদে পা দিয়ে পুল শট খেলে ডিপমিডউইকেটে ক্যাচ দেন (৮ বলে ১০)। অধিনায়ক নুরুল হাসান সোহান উইকেটে আসার পর জয়ের আশা জাগে বাংলাদেশের। ১৫তম ওভারে ওয়েলিংটন মাসাকাদজাকে টানা দুই ছক্কা হাঁকান টাইগার দলপতি। নাজমুল হোসেন শান্তর সঙ্গে ২০ বলে ৪০ রানের ঝড়ো জুটি গড়েন সোহান। জুটিটি ভাঙে শান্ত পুল করতে গিয়ে বল সোজা আকাশে তুলে দিলে। ২৫ বলে ৩ চার আর ১ ছক্কায় ৩৭ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলে জঙউইয়ের শিকার হন শান্ত। এছাড়া মোসাদ্দেক হোসেন করেন ১০ বলে ১৩।


   আরও সংবাদ