ঢাকা, সোমবার, ০৮ অগাস্ট ২০২২, ২৪ অগ্রহায়ন ১৪২৯, ১০ মহররম ১৪৪৪

‘বন্ধুত্বের খাতিরে তাইওয়ানে এসেছি’



‘বন্ধুত্বের খাতিরে তাইওয়ানে এসেছি’

চীনের কঠোর হুঁশিয়ারি। তবুও তাইওয়ান সফরে যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসের নিম্নকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি। বুধবার (৩ আগস্ট) তাইওয়ানের প্রেসিডেন্ট সাই ইং ওয়েনের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন ন্যান্সি। এসময় তিনি বলেন, ‘বন্ধুত্বের খাতিরে আমরা তাইওয়ানে এসেছি’। এই অঞ্চলে শান্তি প্রতিষ্ঠাই তার লক্ষ্য। তাইওয়ানের প্রেসিডেন্টের সঙ্গে বৈঠকে তিনি ওয়াশিংটনের সব ধরনের সহযোগিতা অব্যাহত রাখারও কথা জানান।

পেলোসি বলেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ‘সর্বদা তাইওয়ানের সঙ্গে দাঁড়ানোর প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। ১৯৭৯ সালে তাইওয়ানের সঙ্গে সম্পর্ক নিয়ে একটি আইন পাস হয়। এটি এমন একটি আইন যা ওয়াশিংটনকে দ্বীপটিকে আত্মরক্ষা করতে সহায়তা করতে বাধ্য করে। আজ আমাদের প্রতিনিধি দল তাইওয়ানে এসেছে। এটা দ্ব্যর্থহীনভাবে স্পষ্ট করে দিতে চাই যে আমরা তাইওয়ানের প্রতি আমাদের প্রতিশ্রুতি ভঙ্গ করবো না। একই সঙ্গে আমরা আমাদের স্থায়ী বন্ধুত্বের জন্য গর্বিত। পেলোসি বলেন, তাইওয়ানের সঙ্গে আমেরিকার সংহতি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এবং আমরা এখানে সেই বার্তাটি নিয়ে এসেছি’।

এদিকে, দুই পরাশক্তি যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের মধ্যে উত্তেজনা চরমে পৌঁছেছে মার্কিন স্পিকার ন্যান্সি পেলোসির তাইওয়ান সফরকে ঘিরে। স্থানীয় সময় মঙ্গলবার রাতে নির্ধারিত সময়ের কিছুটা আগেই তাইপেতে পৌঁছান পেলোসি।

জানা গেছে, স্থানীয় সময় ১০টা ৪৪ মিনিটে তাকে বহন করা উড়োজাহাজটি তাইপের মাটি স্পর্শ করে। মার্কিন সামরিক বাহিনীর একটি বিমানে করে মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুর থেকে তিনি তাইপেতে পৌঁছান। সেখানে তাইওয়ানের প্রতিনিধি দল তাকে স্বাগত জানান।

সূত্র: আল-জাজিরা


   আরও সংবাদ