ঢাকা, শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১৪ মাঘ ১৪২৯, ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

লঞ্চ ভাড়া বাড়ানোর বৈঠক আজ



লঞ্চ ভাড়া বাড়ানোর বৈঠক আজ

জ্বালানি তেলের দাম বাড়ানো হয়েছে অস্বাভাবিক হারে। এর পরিপ্রেক্ষিতে বাড়ানো হয়েছে বাস ভাড়া। এবার লঞ্চ ভাড়া বাড়াতে সভা করার কথা রয়েছে। আজ সোমবার দুপুর ১২টায় সচিবালয়ে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে এ সভা হবে। গতকাল রবিবার দুপুরে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. জাহাঙ্গীর আলম খান এ তথ্য জানান।

জাহাঙ্গীর আলম খান বলেন, লঞ্চের ভাড়া পুনর্নির্ধারণে সোমবার দুপুর ১২টায় সচিবালয়ে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে সভা হবে। সভায় সভাপতিত্ব করবেন নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মোস্তফা কামাল। এছাড়া সভায় লঞ্চ মালিক সমিতির নেতারা উপস্থিত থাকবেন।

গত শুক্রবার রাত ১২টার পর থেকে ডিজেল, পেট্রল, করোসিন, ও অকটেনের দাম বাড়িয়েছে সরকার। প্রতি লিটার ডিজেলে ৩৪ টাকা, কেরোসিনে ৩৪ টাকা, অকটেনে ৪৬ টাকা, পেট্রলে ৪৪ টাকা দাম বেড়েছে। দাম বাড়ার পর প্রতি লিটার ডিজেল ১১৪ টাকা, কেরোসিন ১১৪ টাকা, অকটেন ১৩৫ টাকা ও প্রতি লিটার পেট্রল ১৩০ টাকায় কিনতে হচ্ছে। আগে ভোক্তা পর্যায়ে খুচরা মূল্য ছিল প্রতি লিটার ডিজেল ৮০ টাকা, কেরোসিন ৮০ টাকা, অকটেন ৮৯ টাকা ও পেট্রল ৮৬ টাকা।

শনিবার  ‘জ্বালানি তেলের মূল্য সমন্বয়ে পরিবহন সেক্টরে তার প্রভাব’ নিয়ে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয় ধারণা দিয়েছে, জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধির পরিপ্রেক্ষিতে প্রতি কিলোমিটারে বাসভাড়া ২৯ পয়সা ও লঞ্চভাড়া ৪২ পয়সা বাড়তে পারে।

শনিবার জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধির পরিপ্রেক্ষিতে মহানগরে প্রতি কিলোমিটারে বাস ও মিনিবাসে ভাড়া ৩৫ পয়সা বাড়িয়েছে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ)। দূরপাল্লায় বাসভাড়া বেড়েছে ৪০ পয়সা। বাড়ার পর মহানগর পর্যায়ে কিলোমিটারে বাসে ২ টাকা ৫০ পয়সা, মিনিবাসে ২ টাকা ৪০ পয়সা ভাড়া দিতে হচ্ছে। দূরপাল্লার বাসে ভাড়া কিলোমিটার প্রতি ২ টাকা ২০ পয়সা।

গত বছরের ৪ নভেম্বর ডিজেল ও কেরোসিনের দাম প্রতি লিটার ভোক্তা পর্যায়ে ৬৫ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৮০ টাকা পুনর্নির্ধারণ করে সরকার। ৮ নভেম্বর থেকে বাড়ানো হয় লঞ্চভাড়া। ওই সময় কিলোমিটার প্রতি লঞ্চভাড়া ৬০ পয়সা বাড়ে। শতাংশের হিসাবে যা কম দূরত্বে লঞ্চের ক্ষেত্রে ৩৫ দশমিক ২৯ শতাংশ ও বেশি দূরত্বের ক্ষেত্রে ৪২ শতাংশ বাড়ানো হয়।

তখন প্রথম ১০০ কিলোমিটার দূরত্বের জন্য প্রতি কিলোমিটারে জনপ্রতি যাত্রী ভাড়া ৬০ পয়সা বাড়িয়ে ২ টাকা ৩০ পয়সা এবং প্রথম ১০০ কিলোমিটারের বেশি দূরত্বের জন্য প্রতি কিলোমিটারে জনপ্রতি যাত্রী ভাড়া ৬০ পয়সা বাড়িয়ে ২ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছিল। জনপ্রতি সর্বনিম্ন ভাড়া নির্ধারণ করা হয় ২৫ টাকা।

এদিকে গতকাল রবিবার বর্ধিত এ ভাড়া প্রত্যাহারের দাবী করেছে যাত্রী কল্যাণ সমিতি। গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে সংগঠনটি জানায়, একচেটিয়াভাবে বর্ধিত তেলের মূল্য বৃদ্ধিতে যখন যাত্রী কল্যাণ সমিতিসহ বিভিন্ন সামাজিক ও রাজনৈতিক সংগঠন মাঠে আন্দোলন করছে, ঠিক তখনই, জ্বালানীর মূল্য প্রত্যাহারের দাবী না তুলে বাস মালিকেরা সরকারের সাথে মিলেমিশে বাস ভাড়া বাড়াতে ব্যস্ত। বাস ভাড়া বৃদ্ধিতে আন্তর্জাতিক ক্রেতা-ভোক্তা আইন লংঘন করা হয়েছে জানিয়ে সংঠনটি জানায়, যাত্রী প্রতিনিধি ছাড়া বিআরটিএ ও পরিবহন মালিক সমিতি কর্তৃক বাস ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছে। ঘোষিত এ ভাড়া প্রত্যাহার করে সঠিক ব্যয় বিশ্লেষণ করে নতুনভাবে বাস ভাড়া নির্ধারণ করতে হবে।


   আরও সংবাদ