ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ৩০ আশ্বিন ১৪৩১, ৬ জ্বিলহজ্ব ১৪৪৫

রিজার্ভ ব্যবস্থাপনা থেকে সরিয়ে দেয়া হলো ছাইদুরকে



রিজার্ভ ব্যবস্থাপনা থেকে সরিয়ে দেয়া হলো ছাইদুরকে

রিজার্ভসহ ওই দুটি বিভাগের দায়িত্বে থাকা ডেপুটি গভর্নর কাজী ছাইদুর রহমানকে তার দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের বৈদেশিক রিজার্ভ ব্যবস্থাপনাসহ এ বিভাগের দায়িত্ব পেয়েছেন ডেপুটি গভর্নর আবু ফরাহ মো. নাছের।

দেশে তীব্র ডলার সংকটের মধ্যেই এ বিভাগের তদারকির দায়িত্বে পরিবর্তন আনা হলো। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা বলছেন, এটা স্বাভাবিক প্রক্রিয়া। নিয়মিত প্রশাসনিক কাজের অংশ হিসেবে রদবদল আনা হয়েছে। বিশেষ কোনো কারণে এ পরিবর্তন হয়নি।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গুরুত্বপূর্ণ বিভাগ হলো বৈদেশিক রিজার্ভ ব্যবস্থাপনা বিভাগ। এটি বৈদেশিক মুদ্রার মজুত, বিনিয়োগ ও বিক্রির বিষয় দেখভাল করে থাকে। ডেপুটি গভর্নর কাজী ছাইদুর রহমান ফরেক্স রিজার্ভ অ্যান্ড ট্রেজারি ম্যানেজমেন্ট বিভাগে প্রায় ২৫ বছর ধরে বিভিন্ন পদে রিজার্ভ ব্যবস্থাপনা বিভাগে দায়িত্বে ছিলেন।

কাজী ছাইদুর রহমান একই সঙ্গে ব্যাংক পরিদর্শন-৪ ও ব্যাংক পরিদর্শন-৭ বিভাগের তদারকির দায়িত্বে ছিলেন। সে দায়িত্ব থেকেও তাকে সরিয়ে ডেপুটি গভর্নর আবু ফরাহ মো. নাছেরকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

সম্প্রতি ব্যাংক পরিদর্শন-৭ বিভাগের অধীনে থাকা সোশ্যাল ইসলামী ও ইউনিয়ন ব্যাংকে বড় ধরনের অনিয়ম চিহ্নিত হয়েছে। এ নিয়ে ব্যাংক খাতে নানা আলোচনা-সমালোচনা চলছে।

জানা গেছে, কেন্দ্রীয় ব্যাংকের এক অভ্যন্তরীণ অফিস আদেশে এ পরিবর্তন আনা হয়েছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের ৫০টি বিভাগের তদারকির দায়িত্বে আছেন চারজন ডেপুটি গভর্নর। তাদের মধ্যে ডেপুটি গভর্নর আহমেদ জামাল ও এ কে এম সাজেদুর রহমান খানের দায়িত্বে পরিবর্তন আনা হয়নি।

নতুন আদেশের ফলে কাজী ছাইদুর রহমানের অধীনে থাকছে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের এইচআর বিভাগ, ফাইন্যান্সিয়াল ইন্টিগ্রেটি অ্যান্ড কাস্টমার সার্ভিসেস, ডেট ম্যানেজমেন্টসহ ১৪টি বিভাগ। তাকে বৈদেশিক মুদ্রা ব্যবস্থাপনা, ব্যাংক তদারকি ও নীতি প্রণয়নের দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে, যা এতেদিন তিনিই এ দায়িত্বে ছিলেন।

ডেপুটি গভর্নর আবু ফরাহ মো. নাছেরকে যুক্ত করা হয়েছে ব্যাংকিং প্রবিধি ও নীতি বিভাগ, এসএমই বিভাগের পাশাপাশি বৈদেশিক রিজার্ভ ব্যবস্থাপনা ও ব্যাংক পরিদর্শনে।


   আরও সংবাদ